Usabangladesh24.com | logo

২১শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ৬ই ডিসেম্বর, ২০২১ ইং

কার্বন ধরা যন্ত্রে জলবায়ু মোকাবিলা

প্রকাশিত : নভেম্বর ০৩, ২০২১, ০৯:৪৪

কার্বন ধরা যন্ত্রে জলবায়ু মোকাবিলা

নিউজ ডেস্কঃ এই মুহূর্তে বিশ্বের সবচেয়ে বড় মাথাব্যথার কারণ কার্বন নিঃসরণ। এই যন্ত্রণা দূর করতে নানা উপায় বের করার চেষ্টা চলছে। সেই চেষ্টার ফলেই তৈরি হয়েছে কার্বন ধরার যন্ত্র। ইতোমধ্যে একাধিক দেশে পরীক্ষামূলকভাবে যন্ত্রটি বসানোও হয়েছে। উদ্ভাবকদের দাবি, বায়ুমণ্ডল থেকে কার্বন শুষে নিতে যন্ত্রটি বেশ কার্যকর। তবে প্রশ্ন উঠেছে, কার্বন ধরার এই মেশিন দিয়ে কি সামগ্রিকভাবে জলবায়ু পরিবর্তনের গতিপথ পালটে দেওয়া সম্ভব?

বৈশ্বিক উষ্ণায়ন মোকাবিলায় কার্বন নিঃসরণ ন্যূনতম মাত্রায় রাখাই এখন বিশ্বের অন্যতম বড় চ্যালেঞ্জ। চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় প্রাকৃতিক উপায়ে কার্বন নিঃসরণ হ্রাসের পাশাপাশি বাতাস থেকে কার্বন ডাই-অক্সাইড ধরার কৌশল উদ্ভাবনের ওপর বেশি জোর দেওয়া হচ্ছে। আন্তর্জাতিক শক্তি সংস্থা গত বছর এক বিবৃতিতে বলেছে, নিট-শূন্য নির্গমন লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করতে চাইলে কার্বন ধরার প্রযুক্তিতেই বেশি করে নজর দেওয়া জরুরি। গ্রিনহাউজ গ্যাস ধরার প্রযুক্তিতে খুব একটা অগ্রগতি এখনো হয়নি। তবে সম্প্রতি বেশ কিছু কোম্পানি এ নিয়ে কাজ শুরু করেছে।

আলজাজিরা জানিয়েছে, বাতাস থেকে কার্বন আলাদা করতে সুইজারল্যান্ডের স্টার্টআপ কোম্পানি ক্লাইমওয়ার্কস এজির সঙ্গে কাজ করছে আইসল্যান্ডের কোম্পানি কার্বফিক্স। ইতোমধ্যে তারা একটি প্রযুক্তি উদ্ভাবন করেছে। যার নাম দেওয়া হয়েছে ‘ডাইরেক্ট এয়ার ক্যাপচার’ মেশিন। আইসল্যান্ডের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে বিশাল একটি মেশিন বসানো হয়েছে। মেশিনটি বায়ুমণ্ডল থেকে কার্বন শুষে নিয়ে জলবায়ু পরিবর্তনের গতিপথ বদলে দিতে পারে বলে আশা করা হচ্ছে। কার্বন ধরার জন্য এটাই বিশ্বের সবচেয়ে বড় মেশিন। এর উদ্ভাবকরা বলছেন, মেশিনটি বছরে চার হাজার টন গ্রিনহাউজ গ্যাস ধরে বাক্সে জমা করতে পারবে। যার আকার হবে একটা কনটেইটার জাহাজের সমান।

এই কাজে আইসল্যান্ডের কারখানায় বসানো হয়েছে আটটি বৃহদাকার কনটেনার, যার মধ্যে উন্নত প্রযুক্তির ফিল্টার এবং ফ্যান থাকবে, যা বাতাস থেকে কার্বন ডাই-অক্সাইড শুষে নিতে সাহায্য করবে। এর পরে তা মিশিয়ে দেওয়া হবে পানির সঙ্গে। পরের ধাপে সেই পানি মাটির অতি গভীর স্তরে পাঠিয়ে দেওয়া হবে। সেখানেই ওই কার্বন ডাই-অক্সাইড ধীরে ধীরে পাথরে রূপান্তরিত হবে।

গ্লাসগোতে কপ-২৬ শীর্ষক জলবায়ু সম্মেলনে কার্বন নিঃসরণ ঠেকানোর নানা উপায় নিয়ে আলোচনা-বিতর্কের মধ্যে কার্বন ধরার প্রযুক্তি নতুন করে সামনে চলে এসেছে। বিশেষজ্ঞদের কেউ কেউ নতুন এই প্রযুক্তিকে জলবায়ু সংকট সমাধানের গুরুত্বপূর্ণ উপায় বলে দাবি করছেন। আবার কেউ কেউ এর অতিরিক্ত দাম ও মাত্রাধিক জ্বালানির ব্যবহারের কারণে কার্বন নিঃসরণ কমাতে এর উপযোগিতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। অনেকেই বিশ্বের সবচেয়ে বেশি পরিবেশ দূষণকারী দেশ ও প্রতিষ্ঠানগুলোকে আড়াল করার কৌশল বলেও অভিহিত করছেন। তবে ক্লাইমওয়ার্কস এজি জানিয়েছে, ভবিষ্যতে এই পদ্ধতি সুলভ হয়ে উঠবে।

সম্প্রতি কার্বন ধরতে পারার সেরা প্রযুক্তি উদ্ভাবকের জন্য ১০ কোটি ডলার পুরস্কার ঘোষণা করেছেন মার্কিন প্রযুক্তিবিদ ও বিলিয়নিয়ার ইলন মাস্ক। বড় প্রকল্পে ব্যবহারের জন্য নবায়নযোগ্য শক্তি উৎসকে জনপ্রিয় করার ক্ষেত্রে মার্কিন বিলিয়নেয়ার উদ্যোক্তা ইলন মাস্কের অবদান অনস্বীকার্য। তিনিই প্র্রথম টেসলা কোম্পানির মাধ্যমে বাণিজ্যিকভাবে বিদ্যুৎচালিত গাড়ি উৎপাদনের পথ দেখিয়েছেন। গত বছর করোনা মহামারির মধ্যে রেকর্ড পরিমাণ বৈদ্যুতিক গাড়ি বিক্রি হয়েছে। অস্ট্রেলিয়াতে বৃহৎ আকারের সৌরবিদ্যুৎ প্রকল্প স্থাপন করেছেন ইলন মাস্ক। সেই বিদ্যুৎ যোগ হচ্ছে দেশটির জাতীয় গ্রিডে। এতে উপকৃত হচ্ছে লাখ লাখ পরিবার।

সংবাদটি পড়া হয়েছে 15 বার

Managing By Positive International Inc.
All Rights Reserved -2019-2021

President Of Editorial Board : Moinul Chowdhury Helal
Editor : Hamidur Rahman Ashraf
Managing Editor : Mohammad Sahiduzaman Oni
CEO : Mahfuzur Rahman Adnan

Contact : 78-19, 101 Avenue, Ozonepark,

New York 11416

Phone : +1 347 484 4404

Email :
usabangladesh24@gmail.com (News)

info@usabangladesh24.com (CEO)